www.durbinnews.com::জানি এবং জানাই

ঢাকা, ১৬ মে ২০২১, রবিবার

যে গোয়েন্দা রিপোর্টে শোভন-রাব্বানীর ভাগ্য বিপর্যয়



 নিজস্ব প্রতিনিধি    ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ১০:০৩   রাজনীতি বিভাগ


একটি গোয়েন্দা রিপোর্ট তছনছ করে দেয় ছাত্রদলীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর সাজানো বাগান। আগস্টের প্রথম সপ্তাহে ওই রিপোর্টটি হাতে পান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখা প্রতিবেদনটি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠান। প্রতিবেদনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রলীগের কক্ষে মাদকদ্রব্যের সন্ধান, অনৈতিক আর্থিক লেনদেন, সম্মেলনের এক বছর পরও একাধিক শাখায় কমিটি দিতে না পারা, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজে চাঁদা দাবি, নীতি লঙ্ঘন করে বিমানবন্দরের রানওয়েতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের অযাচিত অনুপ্রবেশ, সিনিয়র নেতাদের অসম্মান করা, দেরিতে ঘুম থেকে ওঠা, মধুর ক্যান্টিনে নিয়মিত না যাওয়া এবং সাংবাদিকদের অসম্মান করাসহ ছাত্রলীগের দুই শীর্ষ নেতার বিভিন্ন কর্মকাণ্ড সর্ম্পকে জানতে পারেন প্রধানমন্ত্রী। এসব বিষয় যাচাই করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী অবাক হন। ছাত্রলীগ দেখভাল করার দায়িত্ব পালনকারী নেতাদের সামনে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এরপর কাকতালীয়ভাবে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের অসম্মান এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাস ভবনে চাঁদা চাইতে যাওয়ার বিষয়টি সরাসরি জানতে পারেন। গোয়েন্দা প্রতিবেদনে এ দুইটি বিষয় থাকায় প্রধানমন্ত্রীর কিছু বুঝতে বাকি থাকে না। প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো গোয়েন্দা প্রতিবেদনে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজ থেকে চাঁদা দাবি করার বিষয়টি উঠে আসে। তবে কত টাকা ও কিভাবে চাঁদা দাবি করা হয়েছে এ বিষয়ে গোয়েন্দা রিপোর্টে কিছু বলা নেই। গোয়েন্দা রিপোর্ট পাওয়ার সপ্তাহ খানেক পর সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কাছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম ছাত্রলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে নালিশ দেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ভিসি জানান, প্রায় ৮৬ কোটি টাকা চাঁদা দাবি করে ভিসির বাসায় গেছেন ছাত্রলীগের পদত্যাগী সভাপতি ও সম্পাদক। এরপরই চরমভাবে ক্ষুব্ধ হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিকে নেপথ্যের এমন ঘটনা চলার মধ্যে গত ৭ই সেপ্টেম্বর ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ড নিয়ে সিনিয়র নেতারা নানা অভিযোগ তোলেন। কারণ ছাত্রলীগের অনুষ্ঠানে অতিথি করেও আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা তোফায়েল আহমেদ, ডা. দীপু মনি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে সরাসরি অভিযোগ করেন এসব নেতা। এরপর ১০ই সেপ্টেম্বর গণভবনে প্রবেশের জন্য দেয়া বিশেষ পাস বাতিল করা হয়। বিশেষ পাস বাতিলের পরও কয়েক দফা প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতের চেষ্টা চালান তারা। কিন্তু সফল হননি। সর্বশেষ গত শনিবার ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে পদত্যাগ করতে বলা হয়।




 এ বিভাগের অন্যান্য


কী ঘটছে খালেদার ভাগ্যে?


নেত্রী বলেছেন আসেন, আবার এসে গেলাম


জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে খোকা


এবার ইবি ছাত্রলীগ নেতার চাঞ্চল্যকর অডিও ফাঁস


রাজনৈতিক দলের কোনো ধর্ম থাকতে পারেনা: মঞ্জু


যে গোয়েন্দা রিপোর্টে শোভন-রাব্বানীর ভাগ্য বিপর্যয়


কাদের না রওশন: জাপার চেয়ারম্যান আসলে কে?


নতুন জামায়াতের আমির হতে পারেন মিয়া গোলাম পরওয়ার


জামায়াতের সংস্কাপন্থীদের উদ্যোগে সাড়া নেই


কামাল-ফখরুল কি আতাত করে বিএনপিকে ভোটে রেখেছিলেন?


নিউজার্সি স্টেট বিএনপির কমিটি গঠিত


স্বৈরশাসক থেকে কিংমেকার


নতুন দলে যোগ দিতে রাজি হননি রাজ্জাক ও মাহমুদুর রহমান


জাপা কি দুই ভাগ হয়ে যাবে?


যে কারণে সংস্কার বা নতুন দল নিয়ে আগ্রহ নেই জামায়াতে




ডি ৫, ৫৩১/বি/১ পশ্চিম শেওড়াপাড়া, মিরপুর, ঢাকা
মোবাইল- 01712105339
durbinnews19@gmail.com durbinnews19@durinnews.com © 2021 durbinnews

All rights reserved www.durbinnews.com